আজ সোমবার,৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,২৩শে নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

Sample Image of Sad Moments

কারও কথায় কষ্ট পেয়েছেন? মন ভালো করার ৭টি উপায় এখনই জেনে নিন

মন ভালো করার উপায়


সানরাইজ৭১ এ আপনাকে স্বাগতম। আশা করছি, আপনি অনেক অনেক ভালো আছেন। আজ আমরা আলোচনা করবো মন ভালো রাখার কয়েকটি উপায় নিয়ে। তো আর কথা নয় – সরাসরি যাচ্ছি মূল আলোচনায়।

 

১। যখন আপনার মনে কোনো বিষন্নভাব চলে আসবে তখন একটু নিশ্চুপ হয়ে যান। আর ছোট বেলার মজার মজার ঘটনাগুলো মনে করার চেষ্টা করুন। ছোট বেলার যে  মানুষগুলো পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছে তাদের কথা মনে করুন। দেখবেন, আপনার মনে খানিকটা সময়ের জন্য হলেও দুঃখগুলো দূর হয়ে যাবে। অন্যদিকে আপনার মনটা মনোযোগী হবে।

 

২। আপনার মনের দুঃখভাব কাটানোর জন্য বা মন খারাপ অবস্থা পরিবর্তনের জন্য আরেকটি বিশেষ কাজ করতে পারেন। আর সেটা হলো – আপনি আপনার মনের মানুষটিকে নিয়ে একটু চিন্তা করুন। যাকে আপনি সবচেয়ে বেশী ভালোবাসেন তার কথা চিন্তা করুন। তাকে নিয়ে কোনো বিশেষ স্মৃতি মনে করার চেষ্টা করুন। এছাড়াও বর্তমানে আপনি যে স্থানে আছেন বা  যে পজিশনে আছেন সেখানে আসতে আপনাকে কতোটা কাঠ-খড় পোহাতে হয়েছে তা নিয়েও খানিকটা চিন্তা করতে পারেন। এতে করে আপনার মন ভালো হওয়ার চান্স ৯০% থাকবে।

 

৩। কারও কথায় কষ্ট পেয়েছেন, মন খারাপ করে বসে আছেন! তাহলে তো আপনার মন যেভাবেই হোক ভালো করা দরকার। কিন্তু আপনি চাইলেই তো আর আপনার মনকে ভালো করতে পারবেন না। সেই জন্য প্রয়োজন দরকারী কিছু টিপস যা নিয়ে সানরাইজ৭১ এ আমরা আলোচনা করছি। আপনি এমন অবস্থায় আপনার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করুন। ভবিষ্যতের প্লানিং গুলো নিয়ে চিন্তা করুন। ভবিষ্যতের বিষয়ে আশাবাদী হন। দেখবেন, দুঃখ দেওয়া মানুষটি আর আপনার মনের মধ্যে নেই। আপনি অনেকটা সময়ের জন্য আপনার মনকে সতেজ ও সবল রাখতে সমর্থ হবেন।

 

৪। মন যখন খারাপ হবে তখন আপনার মোবাইল ফোনটিকে কাজে লাগান। আপনি আপনার মোবাইলে থাকা কোনো নাটক বা মুভি বা কোনো বিশেষ ধর্মীয় ভিডিও দেখা শুরু করতে পারেন। প্রয়োজনে কানে হেডফোন লাগিয়ে নিন। জানি, আপনার মন চাইবে না একাজ করতে। কিন্তু বিশ্বাস করুন, আপনি যখন ১০টা মিনিট এভাবে কোনো ভিডিও দেখে কাটাতে পারবেন তখন আপনার মন অবশ্যই ভালো হয়ে যাবে অথবা যে কারণে আপনার মন খারাপ সেই কারণটিই আপনি ভুলে যেতে সমর্থ হবেন।

 

৫। আপনি একটি ডায়েরী রাখুন ঘরে। প্রতিদিনের বিভিন্ন কাজ-কর্মগুলো আপনার ডায়েরীগুলোতে লিখে রাখুন। যখন আপনার মন খারাপ হবে তখন আপনার ডায়েরী বের করে একপাশ থেকে পড়ুন। আপনার মন ইনশাআল্লাহ ভালো হয়ে যাবে।

 

৬। যদি আপনার মন অপরিচিত কারও দেয়া কষ্টের কারণে খারাপ হয় তবে আপনি আপনার কাছের মানুষটিকে ফোন করুন। কথা বলুন। ঘটনা খুলে বলুন। তার কাছে পরামর্শ চান। অথবা তার কাছে চলে যান। দেখবেন, মুহুর্তেই আপনার মন ভালো হয়ে যাবে।

 

৭। পরিবারের কারও দেয়া কষ্টের কারণে আপনার মন খারাপ হলে আপনি একটু নিরিবিলি জায়গায় চলে যান। তারপর আপনার নিজেকে প্রশ্ন করুন। যিনি আপনাকে কষ্ট দিয়েছে তিনি আসলে আপনার জন্য পূর্বে কি কি করেছে তা ভাবুন। যদি পজিটিভ অনেক কিছুই করে থাকে তবে আপনি প্লীজ মন থেকে সেই দুঃখগুলো ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করুন। আর যদি সেরকম না-ই হয় তবে একটু কেঁদে নিন। বেশী করে কাঁদুন। দেখবেন, কান্না শেষে একসময় আপনার মন ভালো হয়ে যাবে।

 

পরিশেষে বলতে চাই, একেকজন মানুষের মন খারাপ হওয়ার পিছনে একেক রকম কারণ থাকতে পারে। তাই, স্পেসিফিকভাবে মন ভালো করার উপায় বলা মুশকিল। তবে, উপরে যে বিষয়গুলো উল্লেখ করা হয়েছে তা যথেষ্ট উপকারে আসতে পারে। মনের মধ্যে কুচিন্তা নিয়ে আসবেন না। নিয়মিত আপনার সৃষ্টিকর্তার প্রার্থনা করুন। আদেশ-নিষেধ মেনে চলুন। মানুষকে কষ্ট দেয়া থেকে বিরত থাকুন। হোক সে পরিচিত কিংবা অপরিচিত। আর নিজেকে কখনো খুব বেশী বড় মনে করবেন না। নিজের ত্রুটিগুলো সবার আগে খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন।

একসময় দেখবেন, আপনি অনেক ভালো থাকছেন। ইচ্ছে করলেই আপনার মন কেউ খারাপ করতে পারবেন না। মনের মতো একজন মানুষ যদি পান যার সাথে আপনার মনের সর্বাধিক মিল আছে তাহলে তাকে ভালোবাসুন। দেখবেন, আপনি আরও ভালো থাকবেন।

আজ এখানেই শেষ করলাম। আবারও ফিরে আসবো নতুন কোনো পোস্ট নিয়ে। সবাই অনেক অনেক ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন এবং সুন্দর থাকুন। নিজের যত্ন নিন এবং সাবধানে থাকুন।

এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

 

[বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।]

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • সোমবার (বিকাল ৫:৪৬)
  • ২৩শে নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ৭ই রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি
  • ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)