আজ বুধবার,১১ই কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,২৭শে অক্টোবর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ঔষুধী গাছ অ্যালোভেরার গুনাগুণগুলো জেনে নিই

ঔষধি গাছ অ্যালোভেরার গুনাগুণ

 

 

অ্যালোভেরার বাংলা নাম ঘৃতকুমারী। তবে সারাবিশ্বের মানুষ একে অ্যালোভেরা হিসাবে চিনে। অ্যালোভেরার আদি বাস উওর-আফ্রিকা এবং কেনারিদিপুঞ্জে। ক্যারলিনিয়াস সর্বপ্রথম অ্যালোভেরার নামকরন করেন। বহু বছর ধরে মানুষ অ্যালোভেরাকে ঔষধি গাছ হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।
অ্যালোভেরার পাতার মধ্য স্বচ্ছ জেলির মত বস্তু পাওয়া যায়। আমরা তাকে জেল বলে জানি। পাতার ঠিক নিচেই থাকে হলুদ রং এর ল্যাটিস এবং তার নিচেই এই জেল পাওয়া যায়। বহুগুণে গুণান্বিত এই উদ্ভিদের ভেষজ গুণের শেষ নেই। এতে আছে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফলিকঅ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিন “এ”, বি৬, বি২ ইত্যাদি। অ্যালোভেরার জেল রুপচর্চা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য রক্ষায়ও মানুষ ব্যবহার হয়ে আসছে। অনেকেই অ্যালোভেরার জুস পান করে থাকেন। অ্যালোভেরায় রয়েছে অসংখ্য বিস্ময়কর উপকারিতা।

১। অ্যালোভেরার জুস হার্ট সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

২। অ্যালোভেরা মাংসপেশী ও জয়েন্টের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকে।

৩। অ্যালোভেরার জুস দাতের ক্ষয় প্রতিরোধ এবং দাঁত ও মাড়ির ব্যথা উপশম করে। দাঁতে কোন ইনফেকশন থাকলে তাও দূর করে দেয়।

৪। ওজন হ্রাস করতে অ্যালোভের জুস বেশ কার্যকরী।

৫। হজমশক্তি বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরা জুসের জুড়ি নেই। অ্যালোভেরা ডায়রিয়ার বিরুদ্ধেও অনেক ভাল কাজ করে।

৬। অ্যালোভেরার জুস ডায়াবেটিক প্রতিরোধ করে। ডায়াবেটিসের শুরুর দিকে নিয়মিত এর জুস পান করলে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা সম্ভব।

৭। ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা খুবই কার্যকর। অ্যালোভেরার অ্যান্টি ইনফ্লামেনটরী উপাদান ত্বকের ইনফেকশন দূর করে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয়।

৮। অ্যালোভেরা জুস রোগ-প্রতিরোগ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। দেহের টক্সিন উপাদান দূর করে দেহকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

৯। চুল সুন্দর রাখার জন্য মাথায় খুশকি দূর করতে এর কোন তুলনা নেই। ঝলমল চুলের জন্য অ্যালোভেরা অনেক উপকারী।

১০। মুখের ঘা দূর করতে অ্যালোভেরা অত্যন্ত কার্যকারী।

১১। অ্যালোভেরায় রয়েছে অ্যালো ইমোডিন, যা স্তন ক্যান্সার ছড়ানো থেকে রোধ করে। এছাড়াও অন্যান্য ক্যান্সার প্রতিরোধে অ্যালোভেরা অনেক কার্যকারী ভূমিকা পালন করে থাকে।

১২। অ্যালোভেরার ঔষধি গুণ রক্তচাপ কমায় এবং রক্তে কোলেস্টেরল ও চিনির মাত্রা স্বাভাবিক অবস্থায় আনতে সাহায্য করে।

১৩। অ্যালোভেরার রস নিয়মিত পান করলে দেহের ভিতর ক্ষতিকর পদার্থ প্রবেশ করতে পারে না। প্রবেশ করলেও তা অপসারণ করে দেয়।

১৪। বিভিন্ন চর্মরোগ ও ক্ষত সারাতে অ্যালোভেরার জুস দারুণ কার্যকর।

১৫। অ্যালোভেরার জুস নিয়মিত পান করলে দেহের ক্লান্তি দূর করে দেহকে সতেজ ও সুন্দর রাখবে।

১৬। সুষম খাদ্যের পাশাপাশি নিয়মিত অ্যালোভেরার রস পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করা সম্ভাব।
এছাড়াও অ্যালোভেরায় রয়েছে আরও অনেক উপকারীতা।

 

সুত্রঃ ইন্টারনেট

অ্যাডমিন বার্তাঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ জাহাঙ্গীর বিন সফিকুল। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

ইমেইলে পোস্ট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন:

আজকের দিন-তারিখ

  • বুধবার (ভোর ৫:৪৫)
  • ২৭শে অক্টোবর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২০শে রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরি
  • ১১ই কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)
জাতীয় হেল্প লাইন