আজ শনিবার,২১শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,৬ই মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ঘি কেন খাবেন, এর উপকারিতাই বা কি জেনে নিন

ঘি এর উপকারিতা

 

 

ঘি সারা বিশ্বে জনপ্রিয়। প্রধানত এশিয়া ও আফ্রিকান দেশগুলোতে ঘিয়ের ব্যবহার বেশি দেখা যায়। ঘিয়ের নিজস্ব সুগন্ধ ও স্বাদ রয়েছে, যা বাটার থেকে পৃথক করে। ঘি হলো খাঁটি চর্বি, তাই বাটারের মতো ঘিও অতিরিক্ত মাত্রায় গ্রহণ না করা ভালো। সীমিত পরিমাণ ঘি খাওয়া শরীরের জন্য ভালো। কারণ ঘিতে বিভিন্ন ধরনের অত্যাবশ্যকীয় পুষ্টি উপাদান রয়েছে।

পুষ্টিতথ্য
এক টেবিল চামচ (১৫ গ্রাম) ঘিয়ে প্রায় ১৩৫ কিলো ক্যালরি শক্তি, ৯ গ্রাম স্যাচুরেটেড ফ্যাট এবং ৪৫ মিলিগ্রাম কোলেস্টেরল উপস্থিত থাকে।

ঘিয়ের মূল উপাদান চর্বি হলেও ঘিয়ে ভালো মাত্রায় রয়েছে ভিটামিন ‘এ’, ভিটামিন ‘ই’ ও ভিটামিন ‘ডি’। অনেকে মনে করেন, চর্বি বা ফ্যাট শরীরের জন্য অপ্রয়োজনীয় ও ক্ষতিকর। কিন্তু ঘিয়ে উপস্থিত আছে ওমেগা-থ্রি ফ্যাট, যা সব বয়সীর জন্যই খুব উপকারী।

উপকারিতা
* ঘি-কে এনার্জি বুস্টার বলা হয়, যা দেহে শক্তি সরবরাহ করে।

* ঘিয়ের ওমেগা-থ্রি ফ্যাট হলো ভালো কোলেস্টেরল, যা দেহের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। ফলে হৃৎপণ্ড সুস্থ থাকে এবং টিউমারের ঝুঁকি কমে।

* ঘি শরীরের বিভিন্ন জ্বালাপোড়া ও ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। আলসারের রোগীরা তাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় সামান্য ঘি রাখলে উপকার পাবেন।

* ঘিতে উপস্থিত ভিটামিন ‘এ’ ও ভিটামিন ‘ই’ হলো অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। আর অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের প্রধান কাজ ক্যান্সার, চর্মরোগ ইত্যাদি প্রতিরোধ করা এবং দেহকে রোগমুক্ত ও সুন্দর রাখা। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং ‘ইমিউন সিস্টেম’কে চার্জ করে।

* ঘিয়ের স্মোকিং পয়েন্ট হলো ৪৫০ ডিগ্রি ফারেনহাইট। অর্থাৎ ঘি অধিক উচ্চ তাপমাত্রা পর্যন্ত গরম করা যায়। অন্যান্য তেল বা বাটার অধিক তাপমাত্রায় পুড়ে যায় এবং ক্ষতিকর ট্রান্স ফ্যাটি এসিড তৈরি করে। কিন্তু ঘিয়ের ক্ষেত্রে তা হয় না। ঘিকে তাই বেকিং, ডিপ ফ্রাইং ইত্যাদির জন্য ভালো।

* যাঁদের দুধ ও দুধজাতীয় খাবারে অ্যালার্জি আছে, তাঁরা অনায়াসে ঘি খেতে পারেন। কেননা ঘি হলো ডেয়ারি-ফ্রি অর্থাৎ ঘিয়ে ল্যাকটোস ও কেসিন নেই। এ ছাড়া অ্যালার্জি প্রতিরোধেও ঘিয়ের ভূমিকা রয়েছে।পে

* চুল সুন্দর ও ত্বক মসৃণ রাখার জন্য এবং চোখের স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য ঘি উপকারী।

* ঘিয়ে উপস্থিত ভিটামিন ‘ডি’ ও ভিটামিন ‘কে’ মজবুত হাড় ও দাঁত গঠনে সাহায্য করে।

 

সুত্রঃ ইন্টারনেট

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • শনিবার (রাত ৮:৪৮)
  • ৬ই মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২১শে রজব ১৪৪২ হিজরি
  • ২১শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)