আজ বৃহস্পতিবার,১৯শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,৪ঠা মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

যৌন সমস্যা নিয়ে যুগান্তকারী পোস্ট – সমাধান হবেই ইনশাআল্লাহ!

যৌন সমস্যা ও সমাধান

 

 

ভুল ব্যবহারের মাধ্যমে অকেজো করে ফেলে তার বীরত্বের প্রতীক কে। যা ছিলো তার বাহাদুরির সম্বল তাই পরিনত হয় ব্যর্থতা, লজ্জা আর হতাশার কারন।

দ্রুত বীর্যপাত বা, Premature Ejaculation (PE)

সমাধানঃ

১. মানসিকতা বদলান।

– দ্রুত বীর্যপাত থেকে মুক্তির মূলমন্ত্র হল দুশ্চিন্তা/ টেনশন/ হতাশা ইত্যাদি সবকিছু থেকে মুক্ত থাকা।

– মনে রাখবেন, আপনার ‘দ্রুত বীর্যপাত’ সমস্যা নেই। আপনি কেবল টাইমিংটা আরো বাড়াতে চাচ্ছেন। এভাবে মানসিক দুর্বলতা থেকে আগে বেড়িয়ে আসুন।

– আজেবাজে ভিডিও, চটি গল্প, হার্বালের বিজ্ঞাপন আর ক্যানভাসারের লেকচার থেকে যা যা শিখেছেন, বুঝেছেন, জেনেছেন সব মাথা থেকে একেবারে ঝেড়ে ফেলুন। পর্নে ৩০-৪০ মিনিট ধরে দেখানো “ধরলাম আর ভোগ করলাম” (যা কিনা কয়েকদিন ধরে নেয়া কয়েকশ ট্রায়াল, ড্রাগ আর সফটওয়্যার এডিটিং এর ফসল!) – এমন পশুত্বের ফ্যান্টাসির সাথে বাস্তব জীবন মিলাতে চাইলে চরম ভুল করবেন।

২. স্বাভাবিক যৌনতা হল একটি ইবাদত, একটি শিল্প। তাতে ডোপামিন আর অক্সিটোসিনের সম্মিলিত রিদমিক ক্রিয়ায় আসে প্রশান্তি। প্রশান্তি আনতে স্ত্রীকে ভালোবাসায়, তার অধিকার, চাওয়া-পাওয়ার প্রতি মনোযোগ দিতে হবে। শুধুমাত্র ‘নিজের’ কামনা পূরণের জন্য উদ্গ্রিব হবেন না।

৩. নিয়মিত ব্যায়াম করবেন। করে, ক্যাগেল ব্যায়াম দ্রুত বীর্যপাত সমাধানে খুবই উপকারী। দেখা গেছে ৩০ সেকেন্ডে বীর্যপাত হয় এমন অনেক বিবাহিত ব্যক্তি ৬ মাস ক্যাগেল ব্যায়াম করে ৩ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ীত্ব অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। নিয়মিত ব্যায়াম করলে ১ বছরের মাথায় ইনশা আল্লাহ পৌছতে পারবেন।

৪. যৌন উদ্দীপক খাবার খান। মধু, আদা, তরমুজ, খেজুর, কিসমিস, কাজু বাদাম ইত্যাদি বীর্য গাঢ় করে। নিয়মিত কলা খাবেন। কলা সেরোটনিন নিঃসরণে সাহায্য করে যা আপনার বীর্যপাতের সময় বৃদ্ধি করবে। তাছাড়া ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে জিনসেং খেতে পারেন। এটি খুবই উপকারী একটি ভেষজ।

লিঙ্গোত্থানে সমস্যা বা, Erectile Dysfunction (ED)

লিঙ্গের উত্থান একটি জটিল প্রক্রিয়া। যেসব ম্যাকানিজম ইরেকশন করায় তাদের তিন ভাগে ভাগ করা যায়-

১. Physical and Mental fitness.
– সুস্থ শরীর ও মনন আমাদেরকে স্বাভাবিক যৌনতা চরিতার্থ করতে পরিবেশ থেকে উদ্দীপনা নিয়ে তা উপযুক্ত রিসিভারকে প্রেরন করে। ফলে বডির Control centre তাতে সারা দিয়ে কাজ শুরু করে।

২. Neuronal and Humeral Action.
– এ পর্যায়ে সেক্সুয়াল হরমোনের নিঃসরণ বেড়ে যায় এবং যৌন উদ্দীপনা সারা দেহে ছড়িয়ে পড়ে। নার্ভাস সিস্টেম তার “Parasympathetic” পার্টকে কাজে লাগিয়ে লিঙ্গের রক্তনালী গুলো প্রসারিত করে দেয়। ফলে সেখানে রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায়।

৩. Vascular effect.
– এমতাবস্থায় রক্তের প্রবল চাপে পেনিসের স্পঞ্জি টিশ্যু গুলো স্ফিত হয়ে ওঠে। এটাই লিঙ্গোত্থান (Erection) ।

তার মানে এই তিন জায়গার যেকোন একটিতেও সমস্যা হলে Erectile Dysfunction হতে পারে। এবার আসি সমস্যাগুলো ও তার প্রতিকারে-

সমস্যাঃ

– Physical আর Mental fitness নষ্ট হয় সেক্স ফ্যান্টাসি, বিকৃত ভাবনা, পর্নোগ্রাফি ও হস্তমৈথুন আসক্তি, দুশ্চিন্তা, হতাশা, দৈহিক ক্ষয়, অপুষ্টি আর বিশৃঙ্খল জীবনাচরণের মত বদ অভ্যাসগুলোর কারনে।

– উপরোক্ত কারন গুলো Nervous System আর Hormonal Balance কেও নষ্ট করে দেয়। ডায়াবেটিস, উচ্চরক্তচাপ, স্থুলতা ও অন্যান্য Endocrine Diseaseও এসব নষ্টের জন্য দায়ী। নিকোটিন, অ্যালকোহল, গাঁজা, আর্টিফিসিয়াল সুইটনার (কোক, জুস), পপকর্ণ, রেড মিট আর এনার্জি ড্রিংকসও বিরুপ প্রভাব ফেলে।

– রক্তনালী সংকুচিত হয়ে যাওয়া বা সঠিক মাত্রায় প্রসারিত না হওয়ার কারন হলো – নিকোটিন ও অ্যালকোহল সেবন, Atherosclerosis, রক্তে উচ্চ Cholesterol, ক্ষয় করে করে অপুষ্টির দরুন Hypotension আর দুর্বলতা, হস্তমৈথুন ও বালিশ, তোষক বা অন্য কিছুতে মৈথুন করে Peyronies disease এবং Penile lymphoedema হয়ে যাওয়া ইত্যাদি।

সমাধানঃ
আগে নিশ্চিত হতে হবে আপনি আসলেই সমাধান চান কিনা? ক্ষতির জন্য দায়ী জিনিসগুলো ত্যাগ করতে ইচ্ছুক কিনা? যে জিনিসগুলো রিকোভারির জন্য করা প্রয়োজন তা “একটা করলাম, একটা করলাম না” এমন না করে পূর্নরুপে করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ কিনা?

যদি একই সাথে ক্ষয়ও চালিয়ে যান আবার সমাধানের জন্য “মন মত দুএকটা” ছাড়া বাকি উপদেশ না মানেন তাহলে আপনার আর বাকি অংশ পড়ে কাজ নেই। নিজের পায়ে কুড়াল মারতে থাকা লোক কখনোই সফলকাম হয়না। হতে পারে না।

আর যদি ইচ্ছাশক্তি প্রবল থাকে, খাটি তওবা করে নতুন ভাবে লড়াই করার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা থাকে, তবে আপনাকে সুস্বাগত…….

১. স্বাভাবিক সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করুন। যাবতীয় অশ্লীল ও ক্ষতিকর আসক্তি চিরতরে ছুঁড়ে ফেলে দিন। এ ব্যাপারে সাহায্যের জন্য “মুক্ত বাতাসের খোঁজে” বই, পেইজ, ব্লগসাইট, ইউটিউব চ্যানেলে যুক্ত হোন। দেখুন, পড়ুন, ফিরে আসার চেষ্টায় নিয়োজিত থাকুন।

২. Diabetes, Hypertension, Obesity, Atherosclerosis, Hyper cholesterolaemia ইত্যাদি কোন রোগ থাকলে তার চিকিৎসা করিয়ে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসুন।

৩. সিগারেট, গাঁজা, মদ সহ সকল নেশাদ্রব্য ও যৌন উদ্দীপনা হ্রাসকারী খাবার বাদ দিয়ে দিন। যৌনাকাঙ্ক্ষা বাড়াতে মধু, তরমুজ, ফুলকপি, বাঁধাকপি, ফলমূল, চিনা বাদাম, কলা, রসুন, ডিম, ডালিম, দুধ ইত্যাদি খেতে থাকুন।

৪. মেদ কমাতে, টেস্টোস্টেরন হরমোন বাড়াতে, রক্তচাপ ঠিক রাখতে ও স্বাভাবিক শারীরিক ফিটনেসের জন্য বসে না থেকে কায়িকশ্রমে অভ্যস্ত হোন। সুযোগ থাকলে জগিং, দৌড়ানো, সাঁতার ইত্যাদি করুন। না হলে ঘরে ওয়ার্ম আপ করে ভারোত্তোলন, পুশআপ, মাউন্টেইন ক্লাইম্বার, অ্যাবডোমিনাল ক্রাঞ্চ, হাই স্টেপিং, বাট ব্রীজ, কোবরা স্ট্রেচ ইত্যাদি ব্যায়াম করতে থাকুন।

৫. পেনিসে রক্ত প্রবাহ বাড়ানোর কার্যকর ব্যায়াম তিনটি- Kegel, Plunk, Squatting. প্রথমে স্বল্প মাত্রা থেকে শুরু করে ক্রোমান্নয়ে সাধ্যানুযায়ী মাত্রায় নিয়ে রেগুলার করতে থাকুন। ইরেকশন স্ট্রং হতে থাকবে ইনশা আল্লাহ।

৬. যারা বিবাহিত বা খুব শিঘ্রই বিবাহ করবেন তারা কিছু ঔষধ সাপ্লিমেন্ট হিসেবে খেতে পারেন। যেমন-
জিনসেং ( Gintex / Recoseng )
1+0+1…….. ২/৩ মাস।
Vit D (Defrol 1000 mg)
0+0+1…….. ১ মাস
Zinc+Folic Acid ( Zifolet/ Defaz)
0+0+1…….১ মাস
১/৪ চামচ অর্শগন্ধা গুড়ো এক গ্লাস পানিতে ৩০ মিনিট ভিজিয়ে প্রতিদিন একবার করে ১ মাস।

৭. উপরোক্ত সব গুলো নিয়ম ফলো করতে পারলে ইনশাআল্লাহ শতভাগ সুফল পাওয়া যাবে। তবে এসবের কোনটাই “২৪ ঘন্টায় ফলাফল” টাইপ কোন ম্যাজিক নয়। এগুলো স্থায়ী, অত্যন্ত কার্যকর ও পার্শপ্রতিক্রিয়া মুক্ত। তবে “ধৈর্য ও ধারাবাহিকতা” খুব গুরুত্বপূর্ণ।

 

সুত্রঃ ইন্টারনেট

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • বৃহস্পতিবার (রাত ১০:০২)
  • ৪ঠা মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৯শে রজব ১৪৪২ হিজরি
  • ১৯শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)