আজ শনিবার,২১শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,৬ই মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

হোমিওপ্যাথিক ঔষধ ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা ও সর্তকতা

হোমিওপ্যাথিক ঔষধ ব্যবহারের সতর্কতা ও নিষেধাজ্ঞাঃ

 

 

কষ্টিকাম (Causticum) ঔষধটিকে কখনও ফসফরাসের (Phosphorus) আগে বা পরে ব্যবহার করবেন না।
বিশেষতSulphur,Silicea,Psorinum,Phosphorus,Lachesis,Kalicarb,Graphities,Carcinosinum,Zincum নামক ঔষধ গুলি ভুলেও উচ্চশক্তিতে খাবেন না।কেননা এতে রোগ বেড়ে যেতেপারে মারাত্মকভাবে এবং তাছাড়াও অন্য ধরণের বিরাট ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।এজন্য প্রথমে নিম্নশক্তিতে (৩০,২০০) ব্যবহার করে উপকৃত হলেই কেবল প্রয়োজনেউচ্চশক্তিতে প্রয়োগ করতে পারেন।

লাইকোপোডিয়াম (Lycopodium)নিম্নশক্তিতে দীর্ধদিন ভুল প্রয়োগে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।এমনকি মৃত্যু পযর্ন্ত হতে পারে।
হ্যানিম্যানের মতে, সালফারের ( Sulphur )পূর্বে ক্যালকেরিয়া কার্ব(Calcarea Carbonica)
ব্যবহার করা উচিত নয়।( এতে শরীর মারাত্মক দুর্বল হয়ে যেতে পারে )

ক্যাল্কেরিয়া কার্বঃ(Calcarea Carbonica)এবং ব্রায়োনিয়া (Bryonia alba) শত্রুভাবাপন্ন(inimical)ঔষধ।কাজেই এই দুটিকে কাছাকাছি সময়ে একটির আগে বা পরে অন্যটিকে ব্যবহার করা নিষেধ।

মার্ক সলঃ( Mercurius solbulis )এবং সইলিশিয়া(Silicea)ঔষধ দুটির একটিকে অপরটি(কাছাকাছি সময় )আগে বা পরে ব্যবহার করা উচিত নয়।

Natrum mur : জ্বরের উচ্চ তাপের সময় নেট্রাম মিউর (Natrum mur)ঔষধটি প্রয়োগ করা নিষেধ।
নেট্রাম মিউর গভিরক্রিয় ঔষধ তাই অনেক দুর্বল জীবনীশক্তির রোগীতে প্রয়োগে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

ক্যাল্কেরিয়া কার্ব (Calcarea Carbonica)
ঔষধটি সালফার বা নাইট্রিক এসিডের ( Nitricum acidum ) পূর্বে ব্যবহার করা নিষেধ।

লিডামঃ( Ledum ) খেয়ে সৃষ্ট দুর্বলতার চিকিৎসায় চায়না ব্যবহার করা ক্ষতিকর।

Sulphur :কোন রোগীর যদি নিদ্রাহীনতা থাকে তবে তাঁকে রাতের বেলা সালফার (Sulphur)দিতে পারেন।পক্ষান্তরে যেই রোগী ভালো ঘুমায়, তাকে সকাল বেলায় সালফার খাওয়ানো উচিত।কেননা রাতের বেলা সালফার দিলে তার ঘুমে অসুবিধা হতে পারে।

নাক্স ভমিকাঃ(Nux vomica)রাতে ভালো কাজ করে এবং সালফার সকালে একটা আরেকটার সম্পূরক(complementary)হিসেবে কাজ করে ।
তাই বলে দুইটা একসাথে সকালে এবং রাতে প্রয়োগ হোমিওপ্যাথিক নীতি বিরুদ্ধ।

মেডোরিনামঃ(Medorrhinum)ঔষধটি হৃদরোগীদেরকে কখনও উচ্চশক্তিতে দিতে নাই এতে করে তাঁর হৃদরোগ বৃদ্ধি পেয়ে মৃত্যুর সম্ভাবনা আছে।প্রথমে ২০০ শক্তিতে প্রয়োগ করে তারপর সহ্য শক্তি অনুযায়ী উপরের শক্তি প্রয়োগ করা যেতে পারে।
অতীত ইতিহাস অথবা পারিবারিক ইতিহাসে টিউবারকুলোসিস থাকলে তাদের ক্ষেত্রে, সালফার, হিপার সালফার, সাইলেসিয়া, ফসফরাস ঔষধগুলো ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

Phosphorus : বাম ফুসফুসের ব্যথায় ফসফরাস (Phosphorus )ঔষধটি ঘন ঘন প্রয়োগ করা বিপজ্জনক।কেননা এতে রোগীর তাড়াতাড়ি যক্ষ্মা রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

কলিনসোনিয়া ক্যানঃ ( Collinsonia Canadensis ) ঔষধটি হৃদরোগীদের ক্ষেত্রে কখনও নিম্নশক্তিতে প্রয়োগ করতে নাই।
Apis, Lac defloratum, Gossipium, Pulsatilla, Pinus lamb, Viscum album ইত্যাদি ঔষধ গর্ভবতীদের দেওয়া নিষেধ।কেননা এতে গর্ভপাত হয়ে যেতে পারে।

সাইলিশিয়াঃ(Silicea )ঔষধটি কারো কোন অপারেশনের ছয়মাসের মধ্যে ব্যবহার নিষিদ্ধ।অন্যথায় সেখানে ঘা/পূঁজ হয়ে জোড়া ছুঁটে যেতে পারে।
কয়েক দিন অচেতন রোগীদেরকে জিংকামমেট(Zincum metallicum)দিতে হয়।কিন্তু ভুলেও এক মাত্রার বেশী দিবেন না।
জর্জ ভিথুলকাসের মতে, কোন রোগীর মধ্যে যদি কোন একটি ঔষধের ১০০ ভাগ লক্ষণ পাওয়া যায়, তবে সেই রোগীকে সেই ঔষধটি নিম্নশক্তিতে খাওয়ানো তাকে হত্যা করার সমতুল্য।
কেন্ট তার অবজারভেশনে বলেছেন যেসব রোগ আরোগ্য হওয়ার মতো নয় সেইসব রোগে উচ্চ শক্তি প্রয়োগ করলে রোগীর মিত্যুও হতে পারে তাই সে সব রোগে নিন্মশক্তি প্রয়োগ করে রোগীকে উপশম দেওয়াটাই ভালো।

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • শনিবার (রাত ৮:৫৩)
  • ৬ই মার্চ ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২১শে রজব ১৪৪২ হিজরি
  • ২১শে ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)