আজ শুক্রবার,১০ই বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,২৩শে এপ্রিল ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গলার ক্যান্সার থেকে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় মুক্তি পাবেন যেভাবে

গলার ক্যানসার থেকে আপনিও মুক্তি পানঃ

 

 

আব্দুল কাদের সাহেব দীর্ঘদিন যাবত গলার ক্যানসার এ ভোগছিলেন। তার বয়স ৪৩ বছর। কিশোরগঞ্জ থাকেন তিনি। তিনি অনেকদিন যাবত নানারকম সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। তিনি গলায় এমন পিণ্ড লক্ষ্য করেন যা পূর্বে কখনো অনুভব করেননি। তার পিণ্ড অনুভবের সবচেয়ে কমন স্থান হলো চোয়ালের ঠিক নিচে। তার কণ্ঠস্বরে পরিবর্তন হয় এবং এটি হলো গলার ক্যানসারের অন্যতম প্রাথমিক উপসর্গ।তিনি সবসময় গলায় কিছু একটা আটকে আছে অনুভব করেন। মাঝে মাঝে তার কাশির সঙ্গে রক্ত বের হতো। অত:পর উনি চিকিৎসক এর পরামর্শ নেন। অনেক চিকিৎসা করেন কিন্তু দিন যতই যায় তার সমস্যা আরো বাড়তে থাকে। এইভাবে অনেক ভোগান্তির পরে তিনি আমার কাছে আসেন। আমি তার সমস্ত সমস্যা গুলো ভালোভাবে শুনে তারপর তার চিকিৎসা করি। আল্লাহর রহমতে তিনি এখন সুস্থ জীবন-যাপন করছেন।

▪গলার ক্যানসারের পাঁচ প্রাথমিক উপসর্গ▪

▪সাধারণত গলার ক্যানসার শেষ পর্যায়ে না পৌঁছা পর্যন্ত উপসর্গ সৃষ্টি করে না। কিন্তু কখনো কখনো প্রাথমিক পর্যায়েই এ ক্যানসারের উপসর্গ প্রকাশ পেতে পারে। এ প্রতিবেদনে উল্লেখিত এক বা একাধিক উপসর্গ আপনার থাকলে কালবিলম্ব না করে চিকিৎসকের কাছে যান। মনে রাখবেন, ক্যানসার যত তাড়াতাড়ি শনাক্ত করা যাবে, কার্যকর চিকিৎসার মাধ্যমে বেঁচে থাকার হার তত বৃদ্ধি পাবে।

▪গলায় পিণ্ডঃ
যদি আপনি গলায় এমন পিণ্ড লক্ষ্য করেন যা পূর্বে কখনো অনুভব করেননি, তাহলে এটি গলার ক্যানসারের একটি লক্ষণ হতে পারে। নিউইয়র্কে অবস্থিত মাউন্ট সিনাই হেলথ সিস্টেমের নাক, কান ও গলা বিভাগের সভাপতি এরিক জেনডেন বলেন, ‘গলায় পিণ্ড প্রকাশের মানে হতে পারে যে টিউমারটি গলা থেকে ঘাড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। এসব পিণ্ড অনুভবের সবচেয়ে কমন স্থান হলো চোয়ালের ঠিক নিচে।’

▪কণ্ঠস্বর পরিবর্তনঃ
ভোকাল কর্ডে গঠিত ক্যানসার প্রায়ক্ষেত্রে কর্কশতা সৃষ্টি করে অথবা কণ্ঠস্বরে পরিবর্তন আনে। এটি হলো গলার ক্যানসারের অন্যতম প্রাথমিক উপসর্গ এবং এই উপসর্গ তাড়াতাড়ি শনাক্ত করা যায়। আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটির গবেষণা অনুযায়ী দুই সপ্তাহের মধ্যে কর্কশতা বা কণ্ঠস্বরের পরিবর্তন চলে না গেলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

কিছু আটকে থাকার অনুভূতি ঃ
যদি আপনি সবসময় গলায় কিছু একটা আটকে আছে অনুভব করেন, তাহলে এটি লক্ষণ হতে পারে যে- একটি টিউমার আপনার গলার কোনো অংশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। মেডিক্যাল পরিভাষায় এই অনুভূতিকে ‘ফরেন বডি সেনসেশন’ বলে। ডা. জেনডেন বলেন, ‘এটি হলো গলার ক্যানসারের খুব কমন একটি লক্ষণ। রোগীরা অনুভব করে যে গলায় কিছু একটা আটকে আছে, কিন্তু তারা তা দেখতে পায় না।’ কোনো কিছু গিলতে কাঠিন মনে হলেও সেটি গলার ক্যানসারের আরেকটি প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে।

কাশির সঙ্গে রক্তঃ
ক্যানসার ছাড়াও অন্যান্য অনেক স্বাস্থ্য দশায় কাশির সঙ্গে রক্ত বের হতে পারে, যেমন- নিউমোনিয়া অথবা ব্রঙ্কাইটিস। গলার ক্যানসারের কারণে কাশির সঙ্গে বের হওয়া রক্ত সাধারণত উজ্জ্বল লাল রঙের হয়ে থাকে। এই রক্তে বায়ু ও শ্লেষ্মার মিশ্রণজনিত বুদবুদ থাকতে পারে।

▪দীর্ঘস্থায়ী গলাব্যথাঃ

আপনার কোনো অসুস্থতা না থাকা সত্ত্বেও গলায় ব্যথা বা অস্বস্তি অনুভূত হলে তা হতে পারে অনির্ণীত গলার ক্যানসারের অন্যতম প্রাথমিক উপসর্গ। ভোকাল কর্ডের নিচের স্থানে সৃষ্ট টিউমারের ক্ষেত্রে প্রায় সময় এসব উপসর্গ দেখা দিতে পারে, আমেরিকান ক্যানসার সোসাইটি অনুসারে।

▪গলার ক্যানসারে আরো ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়
এটা জানা কথা যে, হিউম্যান পাপিলোমাভাইরাস (এইচপিভি) নারীদের মধ্যে জরায়ুমুখ ক্যানসারের ঝুঁকি বৃদ্ধি করতে পারে। কিন্তু গত দশকের অনেক গবেষণায় মুখের ক্যানসারের সঙ্গেও এইচপিভির যোগসূত্র পাওয়া গেছে এবং এ সময়টাতে নারী ও পুরুষের মধ্যে এ ভাইরাসের সঙ্গে সম্পৃক্ত ক্যানসার চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে- দ্য মাউন্ট সিনাই হসপিটালের প্রতিবেদন বলছে একথা।যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের প্রতিবেদন অনুসারে, প্রায় ৭০ শতাংশ গলার পেছনে সৃষ্ট টিউমার হয়ে থাকে এইচপিভি দ্বারা। ডা. জেনডেন বলেন, ‘এইচপিভির সঙ্গে সম্পৃক্ত ক্যানসার বিপজ্জনক হারে বেড়ে চলেছে। এখন পুরুষদের গলার ক্যানসার বেশি হচ্ছে।’ এইচপিভি ও মুখের ক্যানসারের মধ্যকার যোগসূত্র সম্পর্কে এখনো পুরোপুরি জানা যায়নি, কিন্তু যা বোধগম্য হয়েছে তা হলো- পুরুষদের গলায় অধিকাংশ এইচপিভি ইনফেকশন হচ্ছে ওরাল সেক্স থেকে। পুরুষদের এ ভাইরাস টেস্টের উপায় নেই বলে যৌনসঙ্গিনীর এইচপিভি স্ট্যাটাস জেনে নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। এইচপিভি সম্পৃক্ত গলার ক্যানসারের কিছু উপসর্গ হলো- খাবার চাবানোর সময় ব্যথা, গলায় নিরাময় হচ্ছে না এমন ক্ষত, গিলতে সমস্যা অথবা কর্কশ কণ্ঠস্বর।

আপনাদের এইরকম সব সমস্যার একমাত্র সমাধান হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা। অন্যান্য চিকিৎসায় আপনারা সাময়িক ভাবে আরোগ্য লাভ করলেও সেটি স্থায়ী হবে না।তাই স্থায়ীভাবে আরোগ্য লাভ করতে আপনার দরকার হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা।

 

সুত্রঃ ইন্টারনেট

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

Subscribe: Dinajpur School

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • শুক্রবার (দুপুর ২:১৮)
  • ২৩শে এপ্রিল ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ১০ই রমজান ১৪৪২ হিজরি
  • ১০ই বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল)