আজ বুধবার,২৯শে বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,১২ই মে ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Sample Image of Child

হঠাৎ করেই শিশুর পেটে ব্যথা হলে যা করবেন – ঘরোয়া চিকিৎসা সহ

শিশুর পেট ব্যথা


সানরাইজ৭১ এ আপনাকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই অনেক অনেক ভালো আছেন। আজ আমরা আলোচনা করবো শিশুর পেটে ব্যথা কেন হয় এবং এর করণীয় নিয়ে। আশা করি, বিষয়টি আপনাদের উপকারে আসবে। তো আর কথা নয় – যাচ্ছি মূল আলোচনায়।

 

শিশুদের পেটব্যথা খুবই পরিচিত একটি সমস্যা। সবাই এই সমস্যা সম্বন্ধে অবগত। অনেক শিশু প্রায়ই পেটব্যথার কথা বলে। কিন্তু কারও কারও ক্ষেত্রে এই পেটব্যথার কারণ নির্ণয় করা যায় না। ব্যথার ধরনও নির্দিষ্ট থাকে না।

প্রায়ই এই শিশুদের মাথাব্যথা, বুকে ব্যথা, পা কামড়ানো ও অন্যান্য নানা উপসর্গ থাকে। এরা ঠিকমতো ঘুমায় না, অস্থির, অবসাদগ্রস্ত ও খিটখিটে মেজাজের হয়। কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও থাকতে পারে। তবে ব্যথার কথা বললেও এই শিশুরা আবার ব্যথা ভুলে খেলাধুলা, দৌড়ঝাঁপও করে।

শিশুদের এ ধরনের পেটব্যথা নিয়ে অভিভাবকেরা দুশ্চিন্তায় পড়ে যান। এই দুশ্চিন্তার অন্যতম কারণ হলো কী সমস্যায় ব্যথা হচ্ছে, তা নির্ণয় করতে না পারা। কয়েকটি কারণে শিশুদের এই পেটব্যথা হতে পারে। এর মধ্যে ইরিটেবল বাউয়েল সিনড্রোম অন্যতম কারণ হতে পারে।

এ সমস্যায় শিশুদের বারবার, বিশেষ করে খাওয়ার পর বাথরুমে যাওয়ার প্রবণতা থাকে। কোষ্ঠকাঠিন্য কিংবা পাতলা পায়খানা অথবা দুটি সমস্যাই থাকতে পারে। আবার কৃমির কারণেও পেটব্যথা হতে পারে। কারও কারও ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স থাকে বলে দুধ বা দুগ্ধজাতীয় খাবার যেমন কেক, চকলেট ডেজার্ট খেলে পেট ব্যথা করে।

পেটের অভ্যন্তরে কোনো অঙ্গে প্রদাহ হলে হঠাৎ প্রচণ্ড পেট ব্যথা করতে পারে। এসব সমস্যার মধ্যে অ্যাপেন্ডিসাইটিস, অন্ত্র প্রদাহ, ফুটো বা ব্লক হয়ে যাওয়া (ইন্টেসটাইনাল পারফোরেশন বা অবস্ট্রাকশন) অন্যতম।

যক্ষ্মা, হেনোক শেনলেন পারপুরা, ক্রনস ডিজিজ, আলসারেটিভ কোলাইটিস, কিটোএসিডোসিস, হাইপোভলিউমিয়া ইত্যাদি নানা গুরুতর কারণেও পেট ব্যথা হতে পারে। কাজেই শিশুর পেটব্যথায় প্রথমেই খতিয়ে দেখতে হবে কোনো রোগ আছে কি না।

তবে শিশুর পেটব্যথার ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রেই কারণটা পেটের সঙ্গে সম্পর্কিত থাকে না। কারণটা থাকে শিশুর মনের গভীরে। আজকাল মানসিক কারণে শিশুদের পেট ব্যথা হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যাচ্ছে। অনেক শিশুর মানসিক কারণেও পেটব্যথা হতে পারে।

স্নায়বিক চাপ, বিষাদ, অবসাদ, উৎকণ্ঠা, উদ্বেগ, পরিবার বা স্কুলে কোনো সমস্যা থেকে এ ধরনের পেটব্যথার উৎপত্তি। অনেক সময় শিশুরা নিজেকে অবহেলিত বা অপাঙ্‌ক্তেয় মনে করে। মনোযোগ আকর্ষণে তারা ব্যথার কথা বলে ব্যতিব্যস্ত করে তোলে। একে বলে অ্যাটেনশন সিকিং বিহেভিয়ার।

যেসব শিশু অনেক অনুভূতিপ্রবণ, তাদের ব্যথার উপলব্ধি বেশি। শিশুর মনের ব্যথা বা সমস্যা প্রকাশ পায় এই রহস্যজনক পেটব্যথার মধ্য দিয়ে। তাই এরও চিকিৎসা প্রয়োজন। অবহেলা করলে স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও বিকাশ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে, অবসাদ বাড়তে পারে।

তাই প্রথমে দরকার হলে পরীক্ষা–নিরীক্ষার মাধ্যমে আগে নিশ্চিত হতে হবে যে শিশুর পেটব্যথার পেছনে কোনো শারীরিক কারণ রয়েছে কি না। এ ধরনের কোনো সমস্যা না থাকলে ধরে নিতে হবে মানসিক কারণে শিশুর পেটব্যথা হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছ থেকে শিশুর সমস্যা ও তার সমাধানে করণীয় ভালোভাবে বুঝে নিতে হবে। শিশুকে পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে। প্রয়োজন পড়লে চিকিৎসার ব্যবস্থাও করতে হবে।

 

ঘরোয়া চিকিৎসাঃ 

১. আদা
পেটের ব্যথা কমাতে আদা ব্যবহার করতে পারেন। আদার মধ্যে রয়েছে প্রদাহরোধী উপাদান। এটি প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে এবং পেট ব্যথা কমায়।

পেট ব্যথা কমাতে আদা চা পান করতে পারেন। আদা চা বানাতে, এক কাপ গরম পানির মধ্যে কয়েক টুকরো আদা দিয়ে ফুটান। এর মধ্যে সামান্য মধু দিন। এরপর এটিকে পান করুন। এ ছাড়া আদা কুচিও চিবাতে পারেন।

২. হলুদ
হলুদের মধ্যে রয়েছে কারকিউমিন। এটি প্রদাহ কমাতে কাজ করে; পরিপাক ভালো করতে সাহায্য করে।

এক গ্লাস বা দুই গ্লাস পানির মধ্যে হলুদ দিয়ে গরম করুন। দিনে দুইবার এটি পান করুন।

এ ছাড়া ৪০০ থেকে ৬০০ মিলিগ্রাম কারকিউমিন সাপ্লিমেন্ট দিনে তিনবার খেতে পারেন। তবে যেকোনো ওষুধ খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৩. গরম পানির সেঁক
দ্রুত পেটের ব্যথা কমাতে গরম পানির সেঁক খুব কার্যকর। এটি পেটের ব্যথা কমাতে ও পেশি শিথিল করতে কাজ করে।

একটি হট ব্যাগে গরম পানি ভরে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট রাখুন। প্রয়োজনে পুনরায় পদ্ধতিটি অনুসরণ করুন।

এ ছাড়া গরম পানি দিয়ে গোসল করুন। এটিও ব্যথা কমাতে কাজ করবে। তবে গরম পানি সেঁক নেওয়ার সময় একটু সতর্ক থাকুন। না হলে পুড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

[বাচ্চাদের ক্ষেত্রে অতি সাবধানে ঘরোয়া চিকিৎসাগুলো প্রয়োগ করবেন এবং প্রয়োজনে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নেবেন। অবশ্যই কতটুকু খাওয়াবেন সেই ব্যাপারেও সাবধানে থাকবেন। তবে উপরের ঘরোয়া চিকিৎসাগুলো ৬ বছরের নিচের বাচ্চাদের জন্য প্রযোজ্য নয়।]

আজ এই পর্যন্তই। আশা করি, পোস্টটি আপনাদের উপকারে আসবে। সবাই ভালো থাকবেন। করোনা ভাইরাসের উপদ্রব আবার বেড়ে যাচ্ছে। অনুগ্রহ করে সবাই মাস্ক পরিধান করবেন এবং প্রয়োজন ছাড়া পাবলিক প্লেসগুলো এড়িয়ে চলুন। করোনাকে ভয় নয় – কেবল সচেতনতাই যথেষ্ট।

এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলে এবং প্রয়োজনীয় মনে হলে অনুগ্রহ করে আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

 

[বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।]

 

মানসম্মত মোটিভেশনাল ভিডিও পেতে আমাদের চ্যানেলটি সাব্সক্রাইব করতে ক্লিক করুন।

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

One response to “হঠাৎ করেই শিশুর পেটে ব্যথা হলে যা করবেন – ঘরোয়া চিকিৎসা সহ”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

Subscribe: Dinajpur School

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • বুধবার (রাত ৯:১৩)
  • ১২ই মে ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২৯শে রমজান ১৪৪২ হিজরি
  • ২৯শে বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল)