আজ সোমবার,১৮ই শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,২রা আগস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দ্রুত বীর্যপাত প্রতিরোধের সাতটি কার্যকরী টিপস

দ্রুত বীর্যপাত প্রতিরোধের সাতটি কার্যকরী টিপস

 

সানরাইজ৭১ এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা আলোচনা করবো খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে । আশা করি, পোস্টটি আপনাদের ভালো লাগবে এবং এই পোস্ট থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন। তো আর কথা নয় – সরাসরি যাচ্ছি মূল আলোচনায়।

দ্রুত বীর্যপাত প্রতিরোধের ৭ টা ১০০% কার্যকরী ঘরোয়া ট্রিপসঃ

দ্রুত বীর্যপাত অামাদের অনেকেরই মানুসিক অশান্তির কারণ|অবশ্য এ বিষয়ে অনেক ভুল ধারলাও আছে। তাই এ বিষয়ে সঠিক জ্ঞান অর্জন প্রত্যেকেই উচিত।আসুন জেনে নেই দ্রুত বীর্যপাত বলতে আসলে কী বুঝায়? সেই সাথে জানবো এটা কীভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব।

দ্রুত বীর্যপাত কী?
গড়ে অধিকাংশ মানুষেরই পাঁচ মিসনটের মধ্যে বীর্যপাত হয়ে যায়। তাহলে দ্রুত বীর্যপাত বলতে কী বুঝায়? যদি কোন পুরুষের পুরুষাঙ্গ স্ত্রী যৌনাঙ্গে প্রবেশ করানোর ১ মিনিটের মধ্যে বীযৃপাত হয়ে যায় এবং কখনও বীর্যপাত দীর্ঘায়িত করতে না পারেন, তবে তা দ্রুত বীর্যপাতের পর্যায়ে পড়ে।

দ্রুত বীর্যপাতের কারণ:
আপনি যদি চিন্তা করেন আপনার লিঙ্গ উত্থিত হবে না, আপনি আপনার স্ত্রীকে পরিপূর্ন তৃপ্তি দিতে পারবেন না, তবে আপনি পারবেন না।আপনার দ্রুত বীর্যপাত হয়ে যাবে।সুতরাং মনে সাহস রাখবেন।
স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে অবনতি হলেও দ্রুত বীর্যপাত হতে পারে|
মনোবিজ্ঞানীদের মতে, পূর্বের কোন অবৈধ যৌন মিলন নিয়ে আপনার মনে অপরাধ বোধ হলেও এ ধরণের ঘটনা ঘটতে পারে। তাই অবৈধ যৌন মিলন এড়িয়ে চলুন।
দ্রুত বীর্যপাতের কুফল বা ফলাফল কী?
বারবার দ্রুত বীর্যপাতের ফলে পুরুষ হতাশাগ্রস্থ হয়ে যায়।
স্ত্রীর সামনে লজ্জিত হতে হয়।
মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়।
যৌন মিলনের ইচ্ছা থাকে না বরং ভয় কাজ করে।
কখনও কখনও সংসার জীবনে ভাঙ্গন দেখা দিতে পারে।

তাহলে উপায়?
হ্যাঁ, উপায় আছে, দ্রুত বীর্যপাত যেমন প্রতিরোধ করা যায়, তেমনি রয়েছে এর বিজ্ঞানস্ম্মত চিকিৎসা। এর চিকিৎসা করা যায়- কাউন্সেলিং-এর মাধ্যমে।
যৌন কৌশল প্রয়োগের মাধ্যমে।
ওষুধের মাধ্যসম।
ভয়, দুশ্চিন্তা বা মানসিক চাপের কারণেও দ্রুত বীর্যপাত হকত পারে, যা যথাযথ কাউন্সেলিং-এর মাধ্যমে দূর করা যায়।
তবে ওষুধ অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতিরেকে সেবন করা যাবে না।
এখানে আমি যৌন কৌশলের মাধ্যমে কীভাবে বাড়িতে বসেই দ্রুত বীর্যপাত প্রতিরোধ করবেন, সে বিষয়ে আলোচনা করবো। নিচের পদ্ধতি কয়টি প্রয়োগের মাধ্যমে আপনি বাড়িতে বসেই দ্রুত বীর্যপাত প্রতিরোধ করতে পারবেন।
১. পজ ও স্কুইজ টেকনিকের মাধ্যমে: এ পদ্ধতিতে যৌন মিলনের সময় আপনার যখন মনে হবে বীর্যপাত হবে, তখন আপনি যৌন মিলন বন্ধ করে দিবেন, প্রয়োজনে লিঙ্ঘ যৌনিদ্বার হতে বের করবেন এবং আপনার সঙ্গীকে বলবেন আপনার লিঙ্গের মুন্ডি ও দেহের সংযোগস্থলে চেপে ধরতে অথবা আপনি নিজেও চেপে ধরতে পারেন। এতে করে আপনার বীর্যপাতের ইচ্ছা দূরীভখূত হয়ে যাবে।এটা অবশ্য অনুশীলনের ব্যাপার, আপনার প্রথম প্রথম নিয়ন্ত্রণ করতে সমস্যা হতে পারে, তবে অনুশীলনের সাধ্যমে এ পদ্ধতিতে সাফল্য অবম্যই আসে।
২. সহবাসের পজিশন পরিবর্তনের মাধ্যমে: এ পদ্ধতিতে আপনার বীর্যপাতের সম্ভবনা তৈরি হলে, আপনি আপনার সঙ্গীকে উপরে উঠে সহবাস করতে বলবের, এতে আপনি আপনার বীর্যপাতকে দীর্ঘায়িত করতে পারবেন।
3৩.হস্থমৈথুনের মাধ্যমে: সহবাসের পূর্বে হস্থমৈথুন করে নিতে পারেন। এ কথা শুনে অনেকেই অবাক হবেন, বলবেন, হস্থমৈথুন!!! এটা তো ক্ষতিকর।তাহলে এখানে ক্লিক করুন এবং দেখুন হস্থমৈথুন কি সত্যিই ক্ষতিকর???? বিজ্ঞান কী বলে??
৪. কনডম ব্যবহারের মাধ্যমে: অবশ্যই মোটা কনডম ব্যবহার করবেন, যা আপনার অনুভূতিকে কমিয়ে দিবে।সেসব কনডম পরিহার করুন যা আপনার অনুভূতিকে বাড়িয়ে দিবে।
৫. আস্তে আস্তে শ্বাস নিন: যখন আপনার মনে হবে বীর্যপাত হবে, তখন আস্তে আস্তে অর্থাৎ গভীর শ্বাস নিন।
৬. অন্যমনস্ক হওয়ায় মাধ্যমে: এমনকোন বিষয়ে মনো সংযোগকরুন, যা আপনার অনুভূতিকে কমিয়ে দিবে। যেমন দুঃখজনক কোনো স্মৃতি।
৭. লোকাল এনেস্থেশিয়ার মাধ্যমে: এটা স্প্রে বা ক্রীমের আকারে পাওয়া যায়। সহবাসের পূর্বে ব্যবহার করুন। তবে, এতে সহবাসের তৃপ্তি কিছুটা কমে যেতে পারে।

যৌন শক্তি বৃদ্ধির ১০ উপায়!যৌব জীবন সুখের হবে!

 

আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি, পোস্টটি পড়ে অবশ্যই উপকৃত হয়েছেন। আবারও আসবো নতুন কোনো পোস্ট নিয়ে। সেই পর্যন্ত সবাই সুস্থ্য, ‍সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। করোনাকে ভয় নয় – কেবল সচেতন থাকুন।

এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইলো।

[বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারিরীক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগীতা নিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।]

অ্যাডমিন বার্তাঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ জাহাঙ্গীর বিন সফিকুল। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

ইমেইলে পোস্ট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • সোমবার (রাত ২:৫৮)
  • ২রা আগস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ২২শে জিলহজ ১৪৪২ হিজরি
  • ১৮ই শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)
জাতীয় হেল্প লাইন