আজ মঙ্গলবার,৯ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,২৪শে নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

www.sunrise71.com

রজঃনিবৃত্তি (Menopause), জরায়ুতে প্রদাহ (Metritis) জরায়ুর টিউমার বা ক্যান্সারের হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

রজঃনিবৃত্তি, জরায়ুতে প্রদাহ, জরায়ুর টিউমার বা ক্যান্সারের চিকিৎসা


 

সানরাইজ৭১ এ আপনাকে স্বাগতম। আজ আলোচনা করা হবে রজঃনিবৃত্তি অর্থাৎ ইংরেজীতে বলা হয় মেনোপজ, জরায়ুর প্রদাহ এবং জরায়ুর টিউমার বা ক্যান্সার

এই রোগগুলোর লক্ষণ কোনো মহিলার শরীরে দেখা দিলে তার উচিত অতি সত্ত্বর ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা শুরু করা।

বিশেষ করে, জরায়ুর টিউমার বা ক্যান্সারের কোনো লক্ষণ যদি ধরা পড়ে তবে তাৎক্ষণিক চিকিৎসার বন্দোবস্ত করা উচিত।

অন্যান্য প্যাথির কথা আমি বলবো না, কিন্তু হোমিওপ্যাথিতে এসব রোগের খুব ভালো চিকিৎসা আছে এটা সবাই একবাক্যে স্বীকার করেন।

পুরো পোষ্ট মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। এই রোগগুলো সম্পর্কে সব ধারনা পরিষ্কার হয়ে যাবে।


 

রজঃনিবৃত্তি (Menopause)

কারণ ও লক্ষণঃ আমাদের দেশে স্ত্রীলোকদের রজঃনিবৃত্তি ঘটে থাকে ৫০ বৎসর বয়সের মধ্যে। রজঃনিবৃত্তি ঘটার পর অনেক স্ত্রীলোকের কিছু কিছু রোগ দেখা দেয়।

যেমন- মাথা ধরা, হৃদস্পন্দন, হিস্টিরিয়া প্রভৃতি। অজীর্ণতা, অর্শ, প্রচুর ঘাম বা প্রস্রাবও হয় অনেকের। সুচিকিৎসায় এসব রোগ সেরে যায়।

চিকিৎসাঃ স্নায়ুবিক উপসর্গসমুহ দেখা দিলে- স্যাঙ্গুইনেরিয়া ৩x।

কোষ্ঠকাঠিন্য, অর্শ প্রভৃতিতে- সালফার ৩০।

ঘাম বা প্রস্রাব প্রচুর হলে- জ্যাবোরেন্ডি ২x।

অজীর্ণতা দোষে- পালসেটিলা ৬।

এ রোগের শ্রেষ্ঠ ওষুধ- ল্যাকেসিস ৬-৩০।

আনুষঙ্গিক চিকিৎসাঃ এসব রোগিনীর খাদ্য হবে হাল্কা লঘু ধরনের। ঈষৎ গরম পানিতে গোসল করা ভালো। সকালে ও সন্ধ্যায় নির্মল বায়ুতে ভ্রমণ করলে রোগে উপকার হয়।


 

জরায়ুতে প্রদাহ (Metritis)

কারণ ও লক্ষণঃ অনেক স্ত্রীলোকের জরায়ুতে প্রদাহ হয়। এই প্রদাহ হয় দু’রকমের- নতুন ও পুরাতন। প্রদাহ যে ধরনেরই হোক – জ্বর,মূত্রত্যাগে কষ্টবোধ, উদরাময়, তলপেটে বেদনা প্রভৃতি উপসর্গ দেখা দেয়।

অনেক সময় প্রসব বেদনার মতো বেদনাও হয়। এ রোগ হলে চিকিৎসার ব্যাপারে যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। প্রথমে জানতে হবে রোগটা নতুন না পুরাতন।

তারপর উপসর্গ কি তা জানতে হবে। ঠিকমত লক্ষণ বিচার করে ওষুধ প্রয়োগে রোগটা সেরে যায়।

তরুণ জরায়ু প্রদাহের চিকিৎসাঃ ঠান্ডা লাগার কারণে যদি জরায়ু প্রদাহ হয় তাহলে- অ্যাকোনাইট ৩x।

রোগের প্রথমে খাওয়ানো উচিত- ভিরেট্রাম ভিরিডি ৩x।

উপরের ঐ ওষুধটি ব্যর্থ হলে- নাক্সভমিকা ৩০ (প্রথমে), পাইরোজেন ৩০ (পরে)।


পুরাতন জরায়ু প্রদাহের চিকিৎসাঃ জরায়ু শক্ত, বড় ও বেদনাযুক্ত হলে, প্রসবের পর জরায়ু সংকুচিত না হলে ও হরিৎ রোগ দেখা দিলে বুঝতে হবে এটি পুরাতন জরায়ু প্রদাহ।

প্রসব বেদনার মতো বেদনা হলে- সিপিয়া ১২ এবং মাঝে মাঝে-সালফার ৩০।

রক্তস্রাব বেশি হলে- স্যাবাইনা ৩x।

এ রোগের শ্রেষ্ঠ ওষুধ- বেলেডোনা ৩x।

আনুষঙ্গিক চিকিৎসাঃ নিয়মিত ঠান্ডা পানিতে গোসল ও নির্দিষ্ট সময়ে আহার করা বিধেয়। লঘু ও পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। বিশ্রাম যথোচিত হওয়া দরকার।

প্রতিদিন ৩/৪ বার ঈষৎ গরম পানিতে জননেন্দ্রিয় ধুয়ে ফেলা উচিত। এ রোগ হলে কঠিন পরিশ্রমের কাজ, পানির বালতি তোলা, ‍হুটপাট করে কোনো কাজ করা উচিত নয়।


 

জরায়ুতে টিউমার বা ক্যান্সার (Uterine Tumour or Cancer)

কারণ ও লক্ষণঃ প্রথমে অল্প ব্যথা হয় ও অর্বুদ বা আব দেখা দেয়। কখনো এই আব বসে যায়, আবার কখনো বা পাকে এবং পেটে গিয়ে পুঁজ-রক্ত বের হয়। এই অর্বুদ অতি দূষিত।

এ থেকেই সৃষ্টি হতে পারে ক্যান্সারের। তাই প্রথম থেকে যত্ন নিয়ে চিকিৎসা করালে জটিলতা দেখা দেয় না এবং ভয়ও থাকে কম।

চিকিৎসাঃ জরায়ুতে টিউমার হয়েছে জানতে বা বুঝতে পারার সঙ্গে সঙ্গে ওষুধ খাওয়ানো দরকার। এর উৎকৃষ্ট ওষুধ- কার্সিনোসিনাম ৩২। ওষুধটি সপ্তাহে মাত্র একবার সেব্য।

এ রোগের আর একটি ওষুধ- ক্যালক্যারিয়া আয়োড ৩x চূর্ণ। দিনে ৪ বার ১ গ্রেণ করে সেব্য।

উপরের এ ওষুধে যদি কাজ না হয় তাহলে দিতে হবে- ল্যাকেসিস ৬।

এ রোগের আরও দুটি ভালো ওষুধ- আর্স আয়োড ৬ ও থুজা ৩০। কয়েকদিন প্রথম ওষুধটি খাওয়ানোর পর কয়েকদিন দ্বিতীয় ওষুধটি খাওয়াতে হবে।

উপরের এ দুটি ওষুধেও দুটিতে যদি কাজ না হয় তাহলে খাওয়াতে হবে- হাইড্রাস্টিনাম মিউর ৩x।

আনুষঙ্গিক চিকিৎসাঃ দিনে ৩/৪ বার ঈষৎ গরম পানিতে জননেন্দ্রিয় ধুয়ে ফেলা ভালো। কোনো উত্তেজক খাদ্য গ্রহণ করা ‍উচিত নয়।


আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি, বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। সবাই সুস্থ্য, ‍সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।

এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে অনুগ্রহ করে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

 

[বিশেষ দ্রষ্টব্য: এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।]

অ্যাডমিনঃ

আপনাদের সাথে রয়েছি আমি মোঃ আজগর আলী। ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি খুব আগ্রহ ছিল। মানুষের সেবা করারও খুব ইচ্ছে। আর তাই গড়ে তুলেছি স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক ওয়েবসাইট সানরাইজ৭১। আশা করছি, আপনারা নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন এবং ই-স্বাস্থ্য সেবা গ্রহণ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও পড়ুন:

সাম্প্রতিক পোস্টসমুহ

আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার (দুপুর ২:২০)
  • ২৪শে নভেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
  • ৮ই রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরি
  • ৯ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)